ডাউনলোড করুন একটি পরিপূর্ণ “ফ্রীলান্সার” টিউটোরিয়াল ই-বুক!

বলা বাহুল্য, ফ্রীলান্সিং করার শুরুর দিকে যতটা কাঠখড় পাড়ি দিতে হয়েছে এবং এখনও দিতে হচ্ছে, তা এখনকার বেশির ভাগ নতুন ছেলে/মেয়ে, যারা এই লাইনে আসছে প্রতিনিয়তই তাদের এমন ধৈর্য্য ধরে কাজ শিখে নিজেকে এগিয়ে যাবার মানুষিকতা নেই। তাই অল্প কিছুদিনের মধ্যেই যেকোন কাজে অজ্ঞতা বশতঃ তাদের থেকে আয় করার আসল ইচ্ছাটাই দূরে চলে যায়। ফলে অনেকেই কম জেনে বা একে বারেই না জেনে এই লাইনে কাজ করতে এসে সফল হতে না পেরে তাদের মূল্যবান প্রতিটি মূহুর্তকে বিলিয়ে দিচ্ছে।

একটি কথা যারা আসলেই অনলাইনে আয় করছেন তাদের প্রতিটি মানুষের সফলতার পিছনে অনেক সময়, শ্রম এবং অধ্যাবসায় এবং চরম শিখার মানুষিকতাই তাদেরকে সাফল্যের দাঁড়প্রান্তে পৌছাতে সহায়তা করেছে। তাই এখনও যারা শিখার মানুষিকতা ছাড়া ইন্টারনেটে আয় করার স্বপ্নে বিভোর তারা এমন অর্থহীন স্বপ্নগুলোকে দূর করুন এবং সময় ব্যয় করে পুঙ্খানুপুঙ্খ কাজ শিখতে শুরু করুন।

অনেকেই আছে কাজ জানেন কিন্তু কিভাবে ফ্রীলান্সিং সাইটগুলোতে কাজের জন্য আবেদন করবেন তা জানেন না বা আপনার আশে পাশের এমন কেউই নেই যাদের থেকে আপনি সাহায্য সহায়তা নিবেন। আবার এমনও আছেন হাজার হাজার টাকা খরচ করেও শিখতে পারে নাই আসলেই কিভাবে এই সাইটগুলোতে কাজ করতে হয়। না পারার কারন বিস্তারিত পড়ুন

নতুন ফ্রীলান্সারদের কিছু প্রশ্ন এবং তার সহজ সমাধান!

অনেকদিন পর আবারো ফ্রীলান্সিং নিয়ে লিখতে বসলাম। আমি প্রায় ৩-৪ বছর ধরে ফ্রীলান্সিং এর সাথে জড়িত আছি। সেই হিসেবে অনেকের থেকেই বিভিন্ন বিষয়ে তবে বিশেষ করে নতুন করে ফ্রীলান্সিং শুরু করা নিয়ে প্রায়শই ফেসবুকে এবং ম্যানেঞ্জারে প্রশ্নের সম্মূখীন হই। অনেকেই হয়তো বলে বুঝাতে পারি না বা তারা কি করবে তাও বুঝে উঠতে পারে না। কারন একটাই তারা এই লাইনে একদমই নতুন। তাই তাদের থেকে ঘুরে ফিরে পাওয়া কিছু কমন প্রশ্নের সহজ সমাধান দিতেই আজকের এই পোস্টির অবতারনা। চলুন শুরু করি…

বিস্তারিত পড়ুন

মানিবুকার্স এ লেনদেন করছেন? তাহলে সাবধান!

মানিবুকার্সকে বলা হয় বাংলাদেশীদের পেপাল! কারনটা আমরা সবাই জানি, তাই নতুন করে বলার নাই কিছুই। কিন্তু মানিবুকার্সও যে আমাদেরকে পূর্ণ সাপোর্ট দিচ্ছে তা-ও কিন্তু নয়। অনেক চড়াই-উৎরাই পার করে আমাদের লেনদের করতে হচ্ছে। কিন্তু এতো কষ্ট করে উপার্জন করার পরও যদি আপনার টাকা খোয়ান তাহলে কেমন লাগবে? অবশ্যই আস্থা হারায় ফেলবেন কাজ করার থেকে।

বিস্তারিত পড়ুন

মানিবুকার্স এ পাসওয়ার্ড পরিবর্তনঃ সমস্যা ও সমাধান!

আবারো এলাম মানিবুকার্সের সমস্যা ও সমাধান নিয়ে। সম্প্রতি মানিবুকার্স নিয়ে একটু সমস্যায় পড়ার কারনে পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের প্রয়োজন অনুভব করি। তাই নিয়ম অনুযায়ী পাসওয়ার্ড পরিবর্তণ করতে গেলেই তারা আমার কাছে আইডি ভেরিফিকেশন এর জন্য কিছু প্রমাণ চাইলো। তাদের চাওয়ামত আমি আমার ভোটার আইডি কার্ড বিস্তারিত পড়ুন

মানিবুকার্স নিয়ে কিছু সাধারন সমস্যা ও তার সমাধানের চেষ্ঠা!

সরাসরি মূল আলোচনা শুরু করি…

ফ্রীলান্সিং ও ব্লগিং শুরুর প্রথম দিক থেকেই আমি প্রায় অনেকের কাছে শুনে আসছি কিছু কথা, তার মধ্যে উল্লেখ যোগ্য “মানিবুকার্স এ্যাড্রেস পিন ভেরিফাই লেটার”। মানিবুকার্স এর একাউন্ট করার পর তারা একাউন্ট হোল্ডারের ঠিকানা ভেরিফাই করার জন্য এ্যাড্রেস পিন ভেরিফাই লেটার পাঠায় সবার ঠিকানায়। কিন্ত প্রায়ই শুনে আসছি অনেকেই নাকি বিস্তারিত পড়ুন

DBBL এর ফাস্ট ট্রাকে টাকা পাঠানোর সহজ ও ঝামেলাহীন পদ্ধতি [সময় সাপেক্ষ বটে :P]!

ডাচ্ বাংলা ব্যাংকের “ফাস্ট ট্রাক” সহজ আ ঝামেলাহীন পদ্ধতি তা আজ আর কারোই অজানা নেই। কিন্তু আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা এখনও সরাসরি তাদের শাখা অফিসে গিয়ে দীর্ঘ লাইন ধরে দাড়িয়ে থেকে টাকা জমা দিচ্ছেন বা দিচ্ছি। আমিও তার বিপরীতে ছিলাম না। সর্বপরি গত দু’বার ফাস্ট ট্রাকে দিয়ে জমা দিলাম। বেশ মজার ও ঝামেলাহীন পদ্ধতি। আপনাদেরও ভাল লাগবে এবং পরবর্তীতে হয়তো আর অফিসে গিয়ে আর জমা নাও দিতে পারেন। তবে হ্যাঁ, এই পোষ্টটি শুধু তাদের জন্য যারা আমার মত জানতেন না বা এখনও অনেকই জানেন না। তো চলুন ফাস্ট ট্রাকিং করি… 😉

১. প্রথমত আপনার আশেপাশের কোথাও ফাস্ট ট্রাক বুথ থাকলে সেখানে যেতে হবে। তারপর ব্যাংক কর্তৃক নিযুক্ত কর্তব্যরত বুথ অফিসার থেকে ফাস্ট ট্রাক পেমেন্টের ফর্ম চেয়ে নিতে হবে। এবার ফর্মটি আপনার(নাম ও মোবাইল নং) ও আপনি যাকে টাকা পাঠাবেন তার(একাউন্ট নাম, একাউন্ট নং, এবং টাকার পরিমান) তথ্য দিয়ে পূরন করে দিবেন। নিচের ইমজেটি বিস্তারিত পড়ুন

এবার আয় করুন দেশী ফ্রিলান্স সাইট থেকে !

অনেকেই মাঝে মাঝে প্রশ্ন করে থাকে যে, আমাদের দেশী কোন সাইট আছে কিনা যেখানে থেকে আয় করতে পারবেন তারা। আসলে এই কথাটি ৯০% নতুন ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মাঝেই লক্ষ করা যায়। যারা ইন্টারনেট কিছুদিন হল ব্যবহার করছেন, তারা আয় নামের এই সোনার হরিণটার পিছনে প্রথম থেকেই ছুটতে এসেই এই কথাগুলো বলে থাকেন। আসলে বলবেই না কেন, নেট এর পিছনে তারা যুক্ত হচ্ছে, ‘ইন্টারনেটে টাকা উড়ে’, “ক্লিক করুন আর আয় করুন”, এমন আরো সব কথা এরওর মুখে শুনে শুনে। তাই নেটের সাথে যুক্ত হবার সাথে সাথেই আয় করার প্রবনতা তাদের মাঝে চলে আসে। এক্ষেত্রে ভুল নির্দেশনার অভাবে বেশির ভাগই প্রতারনার শিকার হয়ে। আয় নামক হরিণ টিকে শুধু স্বপ্নেই দেখে। বাস্তবিকতা কতজনের ভাগ্যে জুটে?

যাক, যারা নতুন নেটের সাথে যুক্ত হয়েই আয় করতে ইচ্ছুক হন তাদের জন্য সুসংবাদই বিস্তারিত পড়ুন

মাইক্রো ফ্রীলান্সিং মার্কেটপ্লেস “মাইক্রোওয়ার্কার্স” টিউটোরিয়াল শেষ – পর্ব

মাইক্রোওয়ার্কার্স নিয়ে আজকে শেষ পর্বের পোষ্টিং শুরু করতে যাচ্ছি। যারা আগের দুই পর্বকে অনুসরন করে কাজ করতেছেন বা আগে থেকেই কাজ করে আসছেন মাইওয়ার্কার্স-এ তারা এই পর্ব থেকে জানতে পারবেন কিভাবে মাইক্রোওয়ার্কার্স এর কাজ করার পর অর্থ উত্তোলন করতে হয়।

অন্যান্য বড় বড় আউটসোর্সিং সাইটের মত মাইক্রোওয়ার্কার্স এও আপনি ভাল ভাল কাজ করতে পারবেন। কিন্তু, আগেও বলেছি কাজগুলো হবে অনেক ছোট ছোট তা আপনারও এতো দিনে বুঝে গেছেন আশা করছি। তাও একটি স্টেপ পর্যন্ত পৌছানোর পরে আপনি পেমেন্ট উত্তোন করার জন্য রিকোয়েস্ট করতে পারবেন। আর মাইক্রোওয়ার্কার্স এর নিয়মানুযায়ী আপনি $10 আয় করার পর পরই উত্তোলনের জন্য রিকোয়েস্ট করতে পারবেন। এখানে আপনি যদি প্রথম বারের মত মাইক্রোওয়ার্কার্স থেকে অর্থ উত্তোলন করতে চান তবে, আপনাকে উত্তোলনের আগেই আপনার ঠিকানা ভেরিফাই করাতে হবে। তার পরে যেকোন সময় আপনি অর্থ উত্তোলন করাতে পারবেন। তো চলুন এবার কিভাবে কি করতে হবে দেখা যাক….

১. প্রথমে বারের মত উত্তোলন করতে হলে আপনাকে নিচের পদ্ধতিগুলো অনুসরন করে আপনার ঠিকানা ভেরিফাই করাতে হবে। এর জন্য আপনার মাইক্রোওয়ার্কার্স একাউন্টে লগইন করুন। তারপর “Withdraw $” পেজে ক্লিক করুন।

২. যদি আপনার একাউন্টের অর্থ এর পরিমান $10 পার হয়ে থাকে তরে নিচের মত বিস্তারিত পড়ুন

মাইক্রো ফ্রীলান্সিং মার্কেটপ্লেস “মাইক্রোওয়ার্কার্স” টিউটোরিয়াল পর্ব – ২

গত পর্বে দেখিয়েছি কিভাবে কিভাবে মাইক্রোওয়ার্কার্স.কম এ রেজিষ্ট্রেশন এবং প্রোফাইল সাজাবেন । এই পর্বের মূল আলোচনা হবে, কিভাবে একটি জব পছন্দ করবেন এবং তা বায়ারের চাহিদা অনুযায়ী সাবমিট করবেন। তো চলুন কথা না বাড়িয়ে মূল আলোচনায় চলে যাই ….

মাইক্রোওয়ার্কার্স এ আপনি অনেক ধরনের কাজ করতে পারবেন আপনার কোয়ালিটি মত। তবে, এখানে কাজ করার আজে ঠিক বড় বড় ফ্রীলান্সিং সাইটের মত বায়ারের চাহিদা আগে বুঝতে হবে আপনাকে। মানে বায়ার আপনার কাছে কি কি চাচ্ছে তার কাজের জন্য। একটু লক্ষ করুন কাজ করার পূর্বে কি কি বিষয় এর দিকে নজর দিবেন অবশ্যই :

ক. কাজ করতে শুরু করার আগে ভাল ভাবে জব বিবরন পড়ে নিবেন যে, আপনি জবটি করতে পারবেন কিনা। এখানে একটি কথা মনে রাখবেন, অনেক জব তাকবে যেটা আপনি করতে পারবেন। কিন্তু বায়ার তার কাজটির জন্য নির্দিষ্ট দেশ নির্বাচন করে দেন। সেই দেশ ব্যতিত অন্য কেউ কাজ করলেও পেমেন্ট পাবে না। আপনিও সেই দেশের আওতাভূক্ত না হয়ে কাজ করলে আপনি পেমেন্ট পাবেন না এটা ১০০% নিশ্চিত।

খ. সব মাইক্রো ফ্রীলান্সিং সাইটের কাজগুলোই সবনিম্ন ১ মিনিট থেকে সর্বোচ্চ ১৫ মিনিট এর হয়ে থাকে। এত দেখা যায় অনেক কাজই সময়ের মধ্যে হতে পারে আবার নাও হতে পারে। এক্ষেত্রে কিছু চালাকি অবলম্বন করবেন, সেটা হল বায়ারের বিবরন এবং জব প্রুফ হিসাবে কি কি তথা চাইছেন তা স্টেপ বাই স্টেপ সেভ করে নিয়ে কাজ শেষ করবেন তার পরে নিচের থেকে I Accept this job এ ক্লিক করবেন। বিস্তারিত পড়ুন

মাইক্রো ফ্রীলান্সিং মার্কেটপ্লেস “মাইক্রোওয়ার্কার্স” টিউটোরিয়াল পর্ব – ১

বর্তমান বিশ্বে আমাদের চাহিদার সাথে মিল রেখে অনেক ফ্রীলান্সিং সাইট এর উদ্ভাবন হয়েছে। কিন্তু, সবাই কি আমরা সেসব সইট থেকে কাজ নিতে পারছি? উত্তর, অবশ্যই “না”! কারন, আমরা কাজ করতে সবাই ইচ্ছুক কিন্তু কজন জানি সেসব কাজ করতে? এখানেও উত্তর আসবে হাতেগোনা কয়েকজন। একটা কথা মনে রাখতে হবে, শুধু করজ করতে চাইলেই হবে না। কাজ করতে হলে আগে কাজ জানতে হবে। তারপর জানতে হবে কিভাবে কাজ বায়ার থেকে নিবেন সবার সাথে পাল্লা দিয়ে। এবার হয়তো ভাবছেন আপনাকে দিয়ে ফ্রীলান্সিং হবে না এতো ঝামেলার মাঝে। আসলেই কি তাই? তাহলে কি আপনার দ্বারায় ফ্রীলান্সিং হবে না?

আসলে ফ্রীলান্সিং প্লাটফর্মাটা এতটাই বড় আর জটিল যে, এখানে কাজ না জেনে আপনি অন্যেদের সাথে কখনোই প্রতিযোগীতায় টিকতে পারবেন না। আর যদি মানে কারেন আপনাকে দিয়ে আসলেই সেইসব বড় সাইটে কাজ হবে না অথবা সেইসব বড় সাইটে কাজ করার আগে নিজেকে কিছুটা ঝালিযে নিতে চাচ্ছেন অথবা পড়াশুনার পাশাপাশি নিজের এবং ইন্টারনেটের বিল নিজের পকেট থেকে দেয়ার মত ক্ষমতা রাখবেন, তাহলে চলুন আপনার জন্যই অপেক্ষা করছে …. বিস্তারিত পড়ুন