ডুলান্সার আউটসোর্সিং নিয়ে চুলচেড়া ভাবনা এবং কিছু প্রশ্ন!

ভূমিকা না দিয়েই সরাসরি মূল আলোচনায় চলুন…

আউটসোর্সিং বা ফ্রীলান্সিং কি?

আউটসোর্সিং বা ফ্রীলান্সিং বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ সহ বিশ্বের অনেক দেশে অর্থনৈতিক চালিকা শক্তির সবচেয়ে গুরুপ্তপূর্ণ ভিত্তি। বিশেষ করে যুব সমাজের কাছে যারা পড়াশুনার পাশাপাশি নিজের পকেট খরচটা চালাতে চান। একটা সময় দেখা যায় এই পেশায় তারা এমনভাবে জড়িয়ে পড়েন, যা কিনা তাদের ভবিষতের আয় উন্নতির স্থায়ী পথ হয়ে যায়।

আউটসোর্সিং ও ফ্রীলান্সিং শব্দ দুটি আমরা একই জিনিস বুঝলেও। অর্থগত দিক থেকে এদের পার্থক্য আছে বটে, সংক্ষিপ্তবাবে বলছি এদের অর্থগত পার্থক্য। আউটসোর্সিং (Outsourcing) মানে বাহিরের মাধ্যম থেকে কোন কাজ বা তথ্য নিজের কাছে নিয়ে আসা বা নিজের কাজ বা তথ্য অন্যের কাছে পাঠিয়ে দেয়া। এক্ষেত্রে শুধু ফ্রীলান্সিংকে একক ভাবে আউটসোর্সিং বলা চলে না। যেকোন বিষয় এর সাথে যুক্ত হতে পারে। এক্ষেত্রে স্থানীয়/নিজ দেশের কাজকে কিন্তু আউটসোসিং বলা চলে না।

আর ফ্রীলান্সিং (Freelancing) বলতে, মুক্ত বা স্বাধীনভাবে কাজ করার মাধ্যমকে বুঝায়। এক্ষেত্রে বলা চলে ফ্রীলান্সাররা কিন্তু কারো কাছে কুক্ষিগত নয়, এবং কখনও হতেও পারে না। ফ্রীলান্সাররা দেশ বিদেশের সকলের সাথে কাজ করে সম্পূর্ণ নিজের স্বাধীনতায়। কেউ তাকে বাধা বা কাজে বিঘ্নিত করতে পারে না। তবে হ্যাঁ, এক্ষেত্রে কেউ যদি নিজের চেষ্টায় না করে অন্য কোন ফ্রীলান্স দল/গ্রুপ আর আওতায় থেকে কাজ করে তবে তাকে মুক্ত বা স্বাধীন ফ্রীলান্সার বলা যাবে না। এক্ষেত্রে বলে রাখা ভাল, ফ্রীলান্স কি সম্পূর্ণ ফ্রী নিবন্ধন এর আওতায় পড়ে এবং বায়ারের কাজ গুলো ফ্রীলান্স কোম্পানী থেকে নিতে নগন্য পরিমান অর্থ প্রদান করতে হয়ে।

ডুলান্সার রিভিউ:

বাংলাদেশে সম্প্রতি নতুন আউটসোর্সং কোম্পানী হিসাবে “ডুলান্সার” এর সূচনা হয়েছে কয়েক মাস আগেই। শুরু থেকেই তারা ব্যাপক সারা জাগিয়েছে আমাদের দেশের উঠতি তরুণ তরুণীদের মধ্যে। স্বভাবতই খুশির খবর। আমাদের মত নিম্ন আয়ের দেশের মানুষদের জন্য এটা খুশির চেয়ে এক অংশেও কম নয়। তাই অল্প সময়ে ভাল বাজার দখল করে নেয়াটা অস্বাভাবিক কোন ব্যাপার না। আমাদের যুব সমাজও তাই নির্দ্বীধায় যোগদান করছেন তাদের কাতারে।

কিন্তু, কোন নতুন আবিস্কার নিয়ে স্বভাবই সবারই জানার ও দেখার খাকে। সেই হিসাবে “ডুলান্সার” নিয়েও তাই মাথা ব্যাথা সবার-ই। এই ব্যাথাগুলোকে কমাতে গিয়ে অনেকেই অনেক প্রশ্ন করে বসেছেন। তারা কি কাজ করান? তাদের লক্ষ কি? আরো অনেক কিছু। স্বভাবতই একজন ব্লগার কাম ফ্রীলান্সার হিসাবে তাই আমারো জানার উদ্দেশ্য নিয়ে ডুলান্সার ভ্রমন করা এবং সরাসরি ডুলান্সার এর কাজ করেন এমন কিছু মানুষের সাথে বলা বলা যারা অলরেডি ডুলান্সার থেকে আয় করছেন।

সব কিছুকে দেখে শুনে এবং কথা বলে আমার “ডুলান্সার” সম্পর্কে ধারনাই পাল্টে গেল। এ কেমন ফ্রীলান্স আউটসোর্সিং !!!!  একটা আউসোর্সিং কোম্পানী কি এ্যাতোই সহজ? আমি সরাসরি “ডুলান্সার ইনক” কে দায়ী করবো না। কারন যারা এই সার্ভিসের মূল কেন্দ্র বিন্দুতে আছেন তারা হয়তো ভাল লক্ষ নিয়ে পরিচালনা করবেন বলে ধারনা করেছেন। কিন্তু, আমাদের দেশের জন্য শেয়ার বা লীজ নিয়েছেন তাদের মত মাথা মোটাদের কান্ড জ্ঞান আর কার্য পরিচালনা দেখলে ভারতীয় কোন “গঙ্গাজল” এর মত গঙ্গাজল দিয়ে গোসল করাতে পারলেও রাগ মিটবে না।

কত বড় ধান্ধাবাজি করার লক্ষ্য থাকলে মানুষের মাথা মোটা হয়ে পড়ে তা এখন আর অজানা নেই। কিছু বিষল খেয়াল করুন-

তারা বলছেন যে তারা নাকি পৃথিবীর সর্ববৃহত আউটসোর্সিং এবং চুক্তি যুক্ত কোম্পানী, “The world’s largest outsourcing & Website leasing marketplace!”.

এতা বড় মিথ্যা কথা কিভাবে বলেন? আপনারা যদি সত্যিই বড় হতেন তাহলে আপনাদের প্রমান কই। সবচেয়ে বড় বোকামী হচ্ছে আপনাদের সাইট থেকেই তো বলা হয়ে যে এখনো কোন প্রজেক্ট শেষই হয় নাই। সাথে এও বলে দিছেন কেমন মাত্র ১৫টা প্রজেক্ট বয়েছে আপনাদের হাতে। তাহলে এটা কত বড় নেটওয়ার্ক বলবেন কি?

এর পাশেই আবার কোটেশন করেছেন “The unreal is more powerful than the real, because nothing is as perfect as you can imagine it. because its only intangible ideas, concepts, beliefs, fantasies that last. stone crumbles. wood rots. people, well, they die. but things as fragile as a thought, a dream, a legend, they can go on and on.”

প্রতিটি লাইনে syntax ভুল আছে। আপনারা যদি কেউ ভুল গুলো বুঝতে পারেন তবে চুপ থাকলেই ভাল। কারন প্রতিটি লাইনের যদি ভুল ধরি তাহলে বেশি বলা হয়ে যাবে। কিন্তু আমি শুধু প্রথম লাইনের কথা বলবো। আসলেই আপনারা প্রমান করতে গিয়েই ধরা পড়তে চলেছেন যে, “The unreal is more powerful than the real, because nothing is as perfect as you can imagine it”.

সাইটে ১২ বছর সাফল্যের লগো লাগিয়েছেন!

অথচ, Freelancer.com এর থীম এবং লগইন ও রেজিষ্টার এর সোর্সকোড এডিট করে চলাচ্ছেন? ভাবতেই অবাক হই আমরা।

আপনারা যদি এত বড় কোম্পানী হয়ে থাকেন তবে কেন আপনাদের সাইটের প্রায় প্রোজেক্টগুলো নিম্ন মানের? ১২ বছরের একটা কোম্পানীতে মাত্র ১৫টা প্রোজেক্ট!!!!

উপরের ছবির প্রথম প্রোজেক্টটাই দেখুন ভাল করে! Dolancer ID sale, rate $100. আমার সাড়ে তিন বছরের ছোট্ট ফ্রীলান্সিং ক্যারিয়ারে কোন দিনও দেখি নাই কোন ফ্রীলান্স সাইটে তাদেরই আইডি বিক্রয় করা হয়। আচ্ছা ফ্রীলান্স করবো তাতে সাইটের কর্তৃপক্ষকে টাকা দিবো কেন? ওডেক্স, ফ্রীলান্সার সহ বিশ্বের বড় বড় সাইটগুলোতেও কি টাকা নেয় নাকি রেজিষ্ট্রেশন বাবদ? আমার জানা নাই!😦

ভাল কথা টাকা নেন। এবার প্রোজেক্টের ভিতরে যাই:

প্রতিটি ফ্রীলান্স সাইটের রুলস আছে ব্যক্তিগত যোগাযোগ এর মাধ্যম দেয়া পুরোপুরি অবৈধ্য। ধরা পড়লে আইডি সাময়িক সাসপেন্ড অথবা আজীবন মুছে দেয়া হয়। এবং দু’পক্ষের যোগাযোগ এতমাত্র প্রোজেক্ট জয় লাভ করার পরেই হবে, এটাই সমীচিন। কিন্তু, এখানে দেখছি প্রকাশ্যে বায়ার এবং প্রোভাইডার তাদের যোগাযোগা মাধ্যম দিয়ে বেড়াচ্ছেন।

এর দ্বারা কি বুঝতে বাকী থাকে যে কর্তৃপক্ষের মাধ্যম ছাড়াও তারা কাজ দিচ্ছেন। ফলে কর্মীরা প্রতারিত হবার সুযোগ ১০০%।😦
টাকা দিয়ে আইডি-ও নিবো আবার প্রতারিত হবো, বাহ! অসম্ভব প্রতারনার ফাঁদ!!!

তাদের এ্যাবাউট আস পেজ এ লিখা আছে যে, তারা আমেরিকান একটি প্রতিষ্টান। যদি তা-ই হয় তবে বাংলাদেশে এভাবে প্রকাশ্যে লিজিং ব্যবসায় করছেন তাদের অফিস কোথায়। কে বা কারা এর লিজ হোল্ডার। তাদের নিয়ে তো সাইটে কোন কিছুই বলা নাই। শুথুই বলা হয়েছে বাংলাদেশেও আছে। তাহলে কি আমরা ভাবতে পারি না, ভাওতা বাজি ছাড়া আর কিছুই না। আমেরিকায় যদি তাদের প্রতিষ্টান হয়েও এবং তারা যদি ১২ বছর সফল হয় তবে তাদের ডোমেইন মাত্রই ৯ মাসে পা দিছে। আচ্ছা বুঝলাম তাদের বাংলাদেশে নতুন সাইটের বয়স ৯ মাস। কিন্তু, আমেরিকার মত দেশে আজ থেকে ২০ বছর আগেও যদি কোন প্রতিষ্ঠান প্রকাশ হয় তবে তাদের সাইট ছিল। সেই হিসাবে ডুলান্সারের আমেরিকান সাইট কোথায়?  সত্যিই ভৌতিক ব্যাপার সেপার।

মাঝে মাঝে পেজ রিফ্রেসিং এ পাবেন ইরোর বার্তা। সাইট হ্যাং হয়ে পড়বে।

এতা গেল সাইটের বাহিরের সমস্যা। একটু ইনটারনাল বিষয় গুলোও দেখুন না:

এই লিঙ্কে চলুন:

সাইটটা কোড-ইগনিটার পিএইচপি ফ্রেমওয়ার্কে করা। নভিস কোডিং। এবং অবশ্যই কোয়ালিটি নাই।
এসকিউএল ইনজেক্ট করা যায় –
==========================
আউটপুট: A PHP Error was encountered
Severity: Notice
Message: Undefined variable: pName
Filename: project/viewAllProjects.php
Line Number: 20

ইমেজ হিসাবে দেখুন:

এবার এই লিঙ্কে: সর্বনাশ, ডাটাবেস ইরোর!!!!

A Database Error Occurred
Error Number: 1054
Unknown column ‘0’ in ‘where clause’
SELECT `projects`.`id`, `projects`.`project_name`, `projects`.`project_status`, `projects`.`description`, `projects`.`budget_min`, `projects`.`budget_max`, `projects`.`project_categories`, `projects`.`creator_id`, `projects`.`is_feature`, `projects`.`is_urgent`, `projects`.`is_hide_bids`, `projects`.`created`, `projects`.`attachment_name`, `projects`.`attachment_url`, `users`.`user_name`, `projects`.`enddate`, `projects`.`programmer_id`, `projects`.`project_award_date`, `projects`.`project_award_date`, `projects`.`contact`, `projects`.`salary`, `projects`.`flag`, `projects`.`escrow_due`, `users`.`id` as userid, `projects`.`checkstamp`, `projects`.`provider_rated`, `projects`.`buyer_rated`, `projects`.`project_paid`, `projects`.`is_private`, `projects`.`private_users`, `users`.`user_rating`, `users`.`num_reviews`, `users`.`email` FROM (`projects`) LEFT JOIN `users` ON `users`.`id` = `projects`.`creator_id` WHERE `0` = 1 AND `projects`.`project_status` = ‘0’ LIMIT 5

ইমেজ হিসাবে দেখুন:

এই হল সাইটের স্ট্রাকচার এর বহাল অবস্থা। যে সাইট দিয়ে তারা কাজ প্রদান করছেন তার যদি এই বেহাল দশা হয় তাহলে কর্মীরা কোন বিশ্বাসে তাদের পাসওওয়ার্ড আপনাদের কাছে সুরক্ষিত মনে করবে।  আরো বিস্থরিত তথ্য দেখতে প্রথমআলো ব্লগ এ চলুন। প্রশ্নকারীদের প্রশ্নের চাপে শেষে আর উত্তর দিতে পারেন নাই এখনও জনাব সালমান নূর সাহেব।😛

এ সম্পর্কে একটি ছোট জরিপ করেছিলাম যারা অল্প সময়ে শীর্ষ ফ্রীলান্স আউটসোর্সিং সাইটে সফলতা পেয়েছেন, তাদের নিরলস শ্রম, নিষ্টা এবং একাগ্রতার দ্বারা। এ সম্পর্কে-

ফ্রীলান্সার ও ব্লগার “তাওহীদুল ইসলাম রাজীব” তিনি গত দু বছর হল ওডেস্কে সফলতার সাথে কাজ করছেন একাধারে ব্লগিংও করছেন। তার সমস্ত জানা বিষয় গুলো ব্লগিং এর মাধ্যমে শেয়ার করে চলছেন উম্মুক্তভাবে। তিনি বলেছেন-

“যুগ এখন ইলেক্ট্রিক ফ্যানের বাতাস নেয়ার, তা কিনা এই সময় হাত পাখার বাতাস? এ কথা চিন্তাই করা যায় না। তেমনি নতুন টপিক দেখছি dolancer.com নিয়ে কষ্ট না করে রাতারাতি বড়লোক হবার যায় বিষয়টা দু:খ জনক হলেও সত্যয় বিশেষ করে বেকার যুবকরা এই টা নিয়ে মাথা ব্যাথা করে ফেলেছে। অনেকেই আমার কাছে এ নিয়ে অভিমত চাইলে আমি বলে দেই খেটে খান সাময়িক না দীঘর্স্থায়ী লাভবান হবেন। একজন সফল ফ্রিলান্সার হতে গেলে তাকে অবশ্যই ধৈর্য, সাহস, এবং আগ্রহ থাকতে হবে নতুবা বিফল হতে হবে সেখানে কিনা পুরান যুগের মত পাখার বাতাস মানে dolancer,com তথা এমএলএম নিয়ে ব্যস্ত। এতে রাতারাতি সফল হওয়া যায় এটা ঠিক এটা সাময়িক, চিরস্থায়ী না। আবার এতে ঠকার অনেক সম্ভবনা থাকে। কারন এই সব কোম্পানী বেকার যুবকদের লোভ দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নিয়ে সুযোগ বুঝে এক সময় কেটে পড়ে। মাঝ খান থেকে ভুক্তভোগি হয় যারা এই ফাদে পা ফেলেছিল। তাই আমি বলব রাতারাতি নয় একটু কষ্ট করে কোন কাজ শিখুন তাতে কাজের অভাব হবে না।”

আরেক ফ্রীলান্সার “জাকির হোসাইন” এনার অনলাইনে আবিভার্ব ঘটে ব্লগিং এবং প্রোগ্রামিং এর মাধ্যমে। বর্তমানে বাংলাদেশের কয়েকটি জনপ্রিয় ব্লগের মধ্যে টেকটুইটস একটি। এটির পরিচালক তিনি। অল্পদিনের মধ্যে তিনিও সফল ফ্রীলান্সিং এ। বর্তমানে ওডেস্কে কাজ করছেন। তার অভিমত-

“ডুল্যান্সারের প্রথম এবং জনপ্রিয় সার্ভিস হচ্ছে পিটিসি বা Paid To Click যার জন্য আপনাকে ১০০ ডলার দিয়ে এ সুবিদা নিতে হবে। আচ্ছা ঠিক আছে আপনি নিলেন এদেরকে ১০০ টাকা দিয়ে এ পিটিসি সুবিদা টি। এখন আপনাকে ওরা একদিন ১০০ টি এড এ ক্লিক করার সুবিদা দিবে। একটি এড এ ক্লিক করলে ১ সেন্ট আপনার একাউন্টে জমা হবে। একদিনে হয়তো আপনি ঠিক মত সব গুলো এড এ ক্লিক করলে ১ ডলারের মত পাবেন। এবার আসা যাক ১ ডলার পাওয়ার জন্য আপনার কত সময় এবং টাকা খরচ হল।

এড এ ক্লিক করতে হলে আপনার অবশ্যই ইন্টারনেট লাগবে। তার জন্য ৬০০ টাকা বা এর কাছাকাছি টাকা মাসে দিতে হবে আপনাকে। তার পর একটি সাইট লোড হতে ৩০ সেকেন্ড থেকে ১ মিনিট সময় লাগবে। আবার এড এ ক্লিক করে আপনাকে ৩০ সেকেন্ড অপেক্ষা করতে হবে। অর্থাৎ আপনাকে ১০০টি এড এ ক্লিক করার জন্য প্রায় ৩ ঘন্টা সময় দিতে হবে প্রতিদিন তার জন্য আপনি পাচ্ছেন মাত্র ১ ডলার। আচ্ছা, আপনি তাও পেলেন। ১ ডলার করে আপনি মাসে মাত্র ৩০ ডলার পেলেন। কিন্তু আপনি ওদের টাকা দিয়েছেন ১০০ ডলার মানে হচ্ছে আপনার নিজের টাকা তুলতেই লাগবে ৩ মাসের ও বেশি। আর বাকি পরিশ্রম গোল্লায় গেলো। তার উপর আপনার মাসিক নেটবিল তো আছেই। এটা শুধু ডুল্যান্সারের জন্য না সকল পিটিসি সাইটের জন্যই প্রযোয্য। এসব সাইটে সময় দেওয়া মানে নিজের ক্ষতি নিজেই করা।

কিন্তু নেট থেকে কি সত্যি আয় করা যায় না? বা অনেকেই মাসে ৩০ হাজার থেকে ১০ লক্ষ বা আরো বেশি টাকা রুজি করে ইন্টারনেট থেকে। তারা কি এ পিটিসি দিয়েই রুজি করে? পিটিসি দিয়ে কি আপনার আজীবন পরিশ্রম করে এত টাকা রুজি করা যাবে? যাবে না। আপনার যদি সত্যি লক্ষ থাকে ইন্টারনেট থেকে আয় করার তাহলে আপনাকে তাহলে অন্য পথ খুজতে হবে। অবশ্যই পিটিসি না। আর তার মধ্যে সবছেয়ে সহজ মাধ্যম হচ্ছে ব্লগিং। তার পর আছে ফ্রীল্যান্সিং।

আপনার যদি সত্যি আগ্রহ থাকে তাহলে এসব কিছু শিখতে আপনার বেশি সময় লাগবে না এমনকি ১ সপ্তাহ ও না। আপনার অনলাইন ক্যারিয়ারের জন্য সঠিক পথ খুজে বের করুন। আপনার জন্য শুভ কামনা।”

প্রথমআলোব্লগ এর পোস্টে জনাব সালমান নূর সাহেব বলেছেন, “আমাদের সার্ভিস পেতে টাকা দিয়ে-ই আইডি কিনতে হবে”। জানিনা তার সেই মন্তব্যটি এখন ব্লগে বর্তমান আছে কিনা। আর সেই টাকা তুলতে আপনার তিন মাস বেশি সময় লাগবে। আপনি যদি সেই তিন মাস অন্য কোন আউটসোর্সিং সাইটে ব্যয় করেন এবং সচেষ্ট থাকেন, তবে অবশ্য। ১০০০ ডলার এর উপরে আয় করতে পারবেন। ভাল কাজে সময় দিন বর্তমান এর সাথে উজ্জ্বল একটি ভবিষ্যত পাবেন। তারা যে পিটিসি বিজ্ঞাপন ক্লিক ও দেখার জন্য টাকা দিচ্ছেন, এর অন্তরালে কি হচ্ছে? তারা বলছেন নেটওয়াকিং করলে বেশি লাভ। লাভ আর লাভ। রংপুরেও ডুলান্সারের অনুপ্রবেশ ঘটেছে। এখানে ডুলান্সারে কাজ করে টাকা আয় করছেন এমন একজন আমাকে বলেছেন, ৫০০ ডলারের বিনিময়ে একটি আইডি নিলে সেখানে থেকে নাকি কোন পরিশ্রম ছাড়াই প্রতিদিন ১/২ ডলার আপনার একাউন্টে জমা হতে থাকবে। আপনাকে কোন কাজ করতে হবেই না। তাহলে বিনা পরিশ্রমে আপনি যা পাচ্ছেন তা কি হারাম নয়? ডুলান্সার কর্তৃপক্ষ অনেক উদাহরন দাঁড় করিয়েছেন। আমি তাদের উদাহরনের পরিপ্রেক্ষিতে বলবো যদি দেশ এর উন্নয়নেই কাজ করেন তাহলে বিনা টাকায় কাজ দিন না। কেন রেজিস্ট্রেশন এর জন্য টাকা নিচ্ছেন? আপনারাও তো কর্মীদের কাজের থেকে একটা ভাল অংশ লাভ পাচ্ছে। তা কি করতে পারবেন? আমার এই ব্লগে এসে হয়তো এখানেও যুক্তি দিবেন, নিজরে পেটে খাবার না থাকলে অন্যকে কিভাবে খাওয়াবেন? আপনারাইতো অন্যের খাবারের উপরে ভাগ বসাচ্ছেন। তাই নয় কি? আউটসোর্সিং এর বন্যা নামাতে গিয়ে যে নিজেরাই বন্যার মধ্যে ডুবে না মরেন সে খেয়াল কি করেছেন?

দেশের যুবসমাজকে এমন কিছু প্রদান করুন যা দিয়ে তাদের ভবিষ্যত ও উজ্জ্বল হয়। পিটিসি নামের ধাপ্পাবাজি বন্ধ করুন। বলছেন আস্তে আস্তে উন্নয়ন করবেন, ভাল কথা। কিন্তু আপনারা যেমন সিমটম নিয়ে মাঠে কাজ করছেন তাতে কি ভাল আশা করতে পারে জাতি আপনাদের কাছে? কোম্পানীর নামের শেষে ট্রেডমার্ক লাগিয়েছেন নামি দামি। তাহলে কেন কমর না গুটিয়ে মাঠে নেমেছেন? ভাল মানের কাজ নিয়ে নামলে আজ হয়তো বাহবা পেতেন অনেক বেশি। বিশ্বের কোন টপ লেভেল আউসোর্সিং সাইট এমন কথা বলে বা এ্যাতো নিম্ন মানের কাজ নিয়ে বসে থাকে না।

আপনারা বলেই যাচ্ছেন বারো বছরের সাফল্যের কথা। কিন্তু আমার অনলাইনের ৪ বছরের ক্যারিয়ারে এই “ডুলান্সার” নামটি আমি একবারের জন্যও শুনিও নাই। আমার চেয়ে যারা অনেক আগে থেকে অনলাইনের সাথে জড়িত তারাও শুনছে কিনা সন্দেহ আছে!!

দেশের যুব সমাজকে লুটেপুটে খাওয়ার যে ফন্দি আপনারা নিয়ে বসেছেন তা হয়তো যুব সমাজরা এখনও বুঝতেছে না। তবে, তারা যখন বুঝবে হয়তো আপনাদের অস্থিত্ত লুটপার করার সময় পাবে না। কিন্তু আপনারদের অবস্থাও যে, ইউনিপেটুইউ, স্পীকএশিয়া বা সাইটটক এর মত হবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। তাই আমাদের যুব সমাজকে বলছি, সামান্য আয়ে আশায় নিজের সময় আর অর্থ নষ্ট না করে যদি সত্যিই অনলাইনে আয় করার ইচ্ছা থাকে তবে, ভাল কাজ, গ্রাফিক্স, এনিমেশন, ওয়েব ডিজাইন, সফটওয়্যার ডিজাইন ইত্যাদি শিখুন। নিজরে সময়কে কাজে লাগান। আজ থেকে ৬ মাস পরই হয়তো আপনি একটি সাইট ডিজাইন করে ৫০,০০০ থেকে ১,০০,০০০ টাকার বেশি আয় করতে পারবেন। আর যদি এদের মত ভাওতাবাজিদের কাছে পড়ে থাকেন তবে, সময়, শ্রম, অর্থ দিয়ে সাময়িক কিছু লাভ পাবেন, কিন্তু ভবিষ্যৎ পাবেন না। আপনি কি চান না নিজের ভবিষ্যত উজ্জ্বল করতে।

সবাই ভাল থাকবেন, সুস্থ থাকবেন!🙂

41 thoughts on “ডুলান্সার আউটসোর্সিং নিয়ে চুলচেড়া ভাবনা এবং কিছু প্রশ্ন!

  1. Tanvir Rahaman বলেছেন:

    ভাই ১ টা দল বানান,আমি ও সাথে আছি,এই শালা গে ভুয়া ব্যবসায় লাল বাতি জ্বালাতে হবে আমাদের Problame এ পরার আগে।

    • আমার মাথা ব্যাথা না খাকারতো কারন দেখছি না। দেশের টাকা মারবে আর আমরা চুপ থেকে দেখবো? তোর সমস্যা হচ্ছে, সমান্য বর্তমান কিছু লাভ পেয়েছিস তাই তোর চোখ অন্ধ হয়ে আছে। আমার পোস্টের কথাগুলো যদি ভালভাবে পড়তি তাহলে এভাবে বলতি না। তুইতো না পড়েই মন্তব্য করছিস। হাহ!!!!!!!!!😦

      • bAbU বলেছেন:

        vi bangladesh ar onk chalara chay freelincer hotaa butt parchaa na cozz tamon konoo baboshta naii…..taii arukom companee alaraa ato lav korsaa freelincer ar nam bekree koraa…amar nejaroo dolancer a ac asaa… but amar life ar boroo shopNoo hoshaa oDesK a akta group nea kaj korboo…. 😉

  2. niloy বলেছেন:

    আমিও পড়েছি আগে ডুলেঞ্চার নিয়ে, এই দুনিয়ায় সহজে বড়লোক হওয়ার কোনও পথ নেই, আর আমরা বাঙ্গালিরা সেটাই চায়, তাই বারবার প্রতারিতও হই সবাই…

  3. সূর্য্য ব্যানার্জী বলেছেন:

    লেখা খুবই ভালো হয়েছে। ডুলেন্সারের কাজ নিয়ে গেল কয়েকদিন জানার কিছু ইচ্ছা ছিলৈা পারিপার্শ্বিক কিছু উপস্থিত ঘটনার কারনে। আমার আশেপাশেরও অনেক ছেলে মেয়ে এই কাজে আগ্রহী ও সংশ্লিষ্ট থাকার কারনে দুটো জিনিস জানতে খুব ইচ্ছা করছে-
    – একেবারে আলিমুল গায়েব হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা কতটুকু এই কম্পানির? অন্যান্য একই ধরনের যেসব সাইট আছে তাদের এই ট্রেন্ডটা আছে। ভবিষ্যতে কোন সম্ভবনা আছে ভ্যানিশ হয়ে যাওয়ার। আমি যতদুর জানি তাদের একটা টার্গেট দেওয়া হয়েছিলো বাংলাদেশ থেকে কমপক্ষে ৩৬০০ ইউজার জোগাড় করার একটা নির্দিষ্ট টাইম স্পেলের মধ্যে। এই গোলে যাওয়ার জন্যই তারা মাঝখানে তাদের সাত হাজার টাকার প্রিমিয়াম একাউন্টগুলো বিশেষ ছাড়ে বিশেষ সুবিধায় ছেড়েছে মাত্র সাতশ টাকায়। এই ঘটনা শুনার পর ডেস্টিনির সাথে অনেক মিল পেলাম।

    আবার শুনলাম আগামী জানুয়ারীতে নাকি নতুন আরো কয়েকটি প্রজেক্ট আসছে। ডুলেন্সারে যারা ইতিমধ্যে সাতশ টাকা দিয়ে সেই একাউন্টগুলো খুলেছে তারা খুবই আগ্রহী তাদের নেক্সট প্রজেক্ট নিয়ে। আপনার এই পোস্টটি ফেসবুকে একজনের শেয়ার মারফত পেয়ে দেখতে এসেছি। যেখান থেকে এই লিংকটি পেলাম, ‘জাকির হোসেন’-এর শেয়ার করা লিংকেও একজন কমেন্ট করে এসেছে চৌদ্দশ টাকা ইনভেস্ট করে সাত হাজার টাকা তুলেছি।

    ডুলেন্সার এর দল প্রতারক হলে তাদের ব্যাপারে সবাইকে সাবধান করাই একমাত্র উপায় সম্ভবত। এইধরনের নতুন সাইটগুলো থেকে প্রথম গোটাকয়েক সুবিধাভোগ করে নিতে পারেন কয়েকজন একমাত্র অগণন সংখ্যক অল্প পরিশ্রমে প্রচুর টাকা উপার্জনের আশায় গণহারে যখন অনুপ্রবেশ করতে থাকে। সাড়ির পিছনের দিককার ইনভেস্ট করা টাকাটাই একহাত ঘুরে চলে আসে প্রথম দিককার কয়েকজনের হাতে। উদহারণ হিসেবে তারপর কয়েকদিন যাবৎ তারাই নিজেরা স্বউদ্যোগে রেফারেল আর এমএলএম সাইটের প্রচারনা চালাতে থাকে।

    আপনার লেখাটার জন্য ধন্যবাদ। শেয়ার করে দিচ্ছি।

    • ধন্যযোগ, সূর্য্য ব্যানার্জী দাদা আপনার গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য। আসলে এদের ভবিষ্যৎ কি তা বলা মুসকিল। যেহারে এরা লোভ দেখিয়ে যুব সমাজকে বধ করছে তাতে তাদের মাথা আর অন্যদিকে আসছে না। বলতে পারেন ডেসটিনির মত ওয়াস করছে। নিজেদের দ্রুত লাভের জন্য একটা সল্প সময়ের জন্য কিছু কমে আইডি সেল করছে এটা তাদের ধাপ্পাবাজির আরেকটা লক্ষণ। যেখানে ৭০০০ টাকা দিয়ে তাদের সাইটে আইডি সেল হচ্ছে সেখানে মাত্র সাতশত টাকায় আইডি সেল এর খবরটি নিতান্তই ভাবিয়ে তুলে সবাইকে।

  4. http://www.muktokontho.com/796 লিংকটা দেখেন, ৫০+ মন্তব্য হয়েছে। Dolancer-এর প্রতারণা নিয়ে বলতে গেছিলাম। আলোব্লগে আর টিটি-তেও (৭০+ কমেন্ট) একই অবস্থা, উল্টো আমাকেই ঝাড়ি দেয়।

  5. ভাই অনেক বড় একটা উপকার করলেন। থ্যাংকস দেবার মতো ভাসা নাই। আমি ও একজন এই কাজের শিকার । কিছু ত করতে চাই , কি ভাবে করবো ছোট ভাই ক একটা suggestion দিন। আপনের উতরের অপেক্ষা করলাম।
    ০১৭১২০৪০২৯৩

  6. oyza বলেছেন:

    শাওন ভাই@ প্রথমে মানুষকে সচেতন করতে হবে। আমারা একটু বেশি লোভ করি। তারাতারি কোটিপতি হতে চাই।
    পান্ত ভাই এদের কে থাপড়াই ল্যাব নাই। দু এক থাপ্পড়ে এদের ইজ্জত জাই।
    ধন্যবাদ শাওন ভাই।ভাল থাকবেন।

  7. চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখানোর পরেও নাকি ডুলেন্সার বেস্ট এ কথা ডুলেন্সার এর চামচারা ছাড়া আর কেউ বলবে না। এদের বিরুদ্ধে আরো সোচ্চার হইতে হবে।

  8. Akash বলেছেন:

    অনেকদিন আগেই এই সংবাদটি http://www.bd24live.com এ প্রচারিত হয়েছে। আপনারা ইচ্ছে করলে দেখতে পারেন http://bd24live.com/110/dolancer-%E0%A6%93-%E0%A6%8F%E0%A6%B0-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%97%E0%A6%B2%E0%A7%8D%E0%A6%AA-%E0%A6%95%E0%A6%BF-%E0%A6%B6%E0%A7%87/

  9. skylancer.com লইয়া কিছু কন জনাব। অলরেডি টেকা জমা দিয়া ফেলছি। টেকার মারে বাপ। অনেকদিন বইসা থাইকা ভাবলাম এইবার একটা চেষ্টা নিয়া দেখা যেতেই পারে। আমি জেনে শুনে বিষ করেছি পান…

  10. পিটু বলেছেন:

    ভাই ওয়েব ডিজাইন, সফটওয়্যার ডিজাইন কোথায় ভাল শিখা যাবে ?? দয়া করে জানাবেন । ওয়েব ডিজাইন এর কাজ মোটামুটি পারি ,আরও ভাল করে শিখা যাবে কোথায়??

    • Ariful Islam Shaon বলেছেন:

      ওয়েব ডিজাইন আর সফওয়্যার ডিজাইন দুটি আলাদা বিষয়, আপনি ওয়েব ডিজাইন শিখতে http://w3schools.com/ এবং http://www.htmldog.com/ সাইট দুটি অনুসরণ করতে পারেন। এসব থেকে প্রোফেশনালী কাজ শিখতে পারবেন না হয়তো। তবে ব্যাসিক গুলো ভালভাবে রপ্ত করুন। আর আমার এই ব্লগের এইচটিএমএল নিয়ে টিউটগুলো খেয়াল করতে পারেন। আর কিছুদিনের মথ্যে হয়তো আমি প্রো টিউটোরিয়াল লিখতে শুরু কররো।

  11. অবশ্যই পিটিসি না। আর তার মধ্যে সবছেয়ে সহজ মাধ্যম হচ্ছে ব্লগিং। তার পর আছে ফ্রীল্যান্সিং।

    এই ব্লগিং করে টাকা আয় এর ব্যপারটা আমার কাছে পরিষ্কার না। কোথাও কারো বল্গে কি বিস্তারিত জানা যাবে।

  12. বাংলাদেশের বহুল পঠিত অনলাইস নিউজ পোর্টাল a1news24.com এর বিজ্ঞান পাতা থেকে আপনি আরও কিছু বিষয়ে জানতে পারেন । http://a1news24.com/category/%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%9C%E0%A7%8D%E0%A6%9E%E0%A6%BE%E0%A6%A8-%E0%A6%93-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%AF%E0%A7%81%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A6%BF/

    সরিাসরি এই লিন্ক এ প্রবেশ করুন । বিস্তারিত আরও কিছু জানার থাকলে আমাদেরকে ইমেইল করতে পারেন

মন্তব্য প্রদান করুন ...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s